ন্যাভিগেশন মেনু

৩৭ দিনের ব্যবধানে বধূ’কে ৩বার তালাক, ৪বার বিয়ে


আমাদের সমাজে হালে আকছার এমনতর ঘটনার অভাব নেই- প্রথমে বিয়ে, তারপর বিচ্ছেদ এবং সবশেষে অন্য কারওর সঙ্গে ফের নতুন সংসার। বর্তমান সময়ে এ ধরনের ঘটনা হামেশাই শিরোনামে উঠে আসে।

কিন্তু কখনও শুনেছেন, একজন ব্যক্তি একই মহিলাকে তিনবার ডিভোর্স এবং চারবার বিয়ে করেছেন! তাও আবার মাত্র ৩৭ দিনের মধ্যে? হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও এমনই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তাইওয়ানের তাইপের এক ব্যক্তি।

সম্প্রতি এক আইনজীবীর ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে এই খবরটি সামনে এসেছে। জানা গিয়েছে, পেশায় ব্যাংক কর্মী ওই ব্যক্তি বিয়ের জন্য সবেতন ছুটির আবেদন করেন।

পেয়েও যান আটদিনের ছুটি। কিন্তু আট দিনের মাথায় স্ত্রীকে ডিভোর্স দেন। আবার বিয়ের দিন ধার্য করে ব্যাঙ্কে ফের ছুটির আবেদন করেন। ছুটি মঞ্জুর হয় এবং তিনি ৭ দিনের প্রাক্তন বউকেই ফের বিয়ে করেন।

পরের ছুটির ফুরনোর আগেও তিনি একই কাণ্ড ঘটান অথাৎ স্ত্রীকে তালাক দেন।  তার স্ত্রীকে এরকম মোট তিনবার তালাক দেন। শেষপর্যন্ত চতুর্থবারের জন্য তালাক দেওয়া স্ত্রীকে ফের বিয়ে করেন।

যদিও পরবর্তীতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বিষয়টি বুঝতে পারেন। পরেরবার ওই কর্মী আবার বিয়ের ছুটির আবেদন করলে ব্যাংক তা নাকচ করে দেয়। পাশাপাশি জানায়, ওই কর্মীকে তারা সবেতন ছুটি শুধু তাঁর প্রথম বিয়ের জন্যই দেওয়া হবে।

যদিও ওই ব্যক্তি অফিসের এই সিদ্ধান্তে মোটেই ঘাবড়ে যান না। উলটে তাইপেই শহরের শ্রম দপ্তরে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায়। শুনানিতে বিস্তারিত শোনার পর শ্রম দপ্তর ওই ব্যাঙ্ককেই ৭০০ ডলার জরিমানা করে।

পরে অবশ্য ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গোটা বিষয়টি শ্রম দপ্তরকে জানায়। দপ্তরের শীর্ষ আধিকারিক জানিয়ে দেন, লোকটির আচরণ অযৌক্তিক, কিন্তু শ্রম আইনে এই ধরনের কাজের জন্য কোনও শাস্তির বিধান নেই। তাই ওই ব্যক্তিকে শাস্তি দেওয়া যাবে না।

এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর অনেকেই বিষয়টি নিয়ে মজা করেছেন। কেউ কেউ ওই ব্যক্তির উপস্থিত বুদ্ধির প্রশংসাও করেছেন।

এস এস