ন্যাভিগেশন মেনু

হাইতিতে কারাগারে সহিংসতায় ২৫ জন নিহত


রাজধানী হাইতিতে পোর্ট-অঁ-প্রিন্সের উপকণ্ঠে অবস্থিত ক্রিক্স-ডেস-বুকেটস কারাগারে সহিংসতার ঘটনায় জেলখানার পরিচালক ও একজন কুখ্যাত গ্যাংলিডার-সহ ২৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ওই কারাগার থেকে চারশোর বেশি আসামি পালিয়ে গেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, শনিবারের (২৭ ফেব্রুয়ারি) এই ঘটনা এক দশকের মধ্যে দেশটির সবচেয়ে বড় ও ভয়াবহতম ঘটনা।

গ্যাংলিডার আর্নেল জোসেফকে জেল থেকে বের করে নেওয়ার একটি চেষ্টা বলে মনে করা হচ্ছে। জেসেফ ২০১৯ সালে আটক ধর্ষণ, অপহরণ ও খুনের অপরাধে হাইতির সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অপারধী।

পুলিশের মুখপাত্র গ্যারি দেস্রোসিয়ার্স জানান, কারাগারে জোসেফের পায়ের গোড়ালি শিকল পরানো ছিলো। তিনি পালানোর একদিন পর শুক্রবার লাস্টার শহরে আর্টিবোনাইট অঞ্চলে একটি মোটরসাইকেলে চড়ে আসছিলেন। তখন একটি পুলিশ চেকপয়েন্ট দিয়ে পুলিশের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া একটি বন্দুক নিয়ে যাওয়ার সময় জোসেফ পুলিশের সাথে গুলি বিনিময়ে মারা যায়।

এপি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি কারাগারটির বাইরে কমপক্ষে তিনজনের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। এছাড়া সশস্ত্র গার্ডের হাতে ধরাপড়া আসামিদের ট্রাকে করে ফেরত আনা হয়েছে।

গণহারে আসামি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনার ব্যাপারে সেক্রেটারি অব কমিউনিকেশন ফ্রাঞ্জ এক্সান্তাস বলেন, ‘ছয় বন্দি ও বিভাগীয় পরিদর্শক পল হাক্টর জোসেফসহ ২৫ জন নিহত হয়েছে।’

এক সংবাদ সম্মেলনে এক্সান্তাস বলেন, ‘নিহতদের মধ্যে অনেক সাধারণ নাগরিক রয়েছে। আসামিরা পালিয়ে যাওয়ার সময় তাদের হাতে এসব নাগরিক নিহত হয়।’

তিনি আরও বলেন, শুক্রবার সকালে ক্রইক্স-দেস বৌকুয়েটস কারাগারের মোট এক হাজার ৫৪২ আসামির মধ্যে এক হাজার ১২৫ জনকে তাদের সেলে পাওয়া যায়।

সিবি/এডিবি