ন্যাভিগেশন মেনু

সিলেটে কাফনের কাপড় পরে সড়ক দুর্ঘটনার প্রতিবাদ


সিলেটে কাফনের কাপড় পরে ‘সচেতন বিশ্বনাথ সমাজ কল্যাণ সংস্থা’ নামে একটি সংগঠন সড়ক দুর্ঘটনারোধে মানববন্ধন ও মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে। এ সময় পাঁচ দফা দাবি জানান তারা।

রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর ও দক্ষিণ সুরমা তিন উপজেলার সীমান্তবর্তী রশিদপুরে দুই বাসের দুর্ঘটনাস্থলে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

কর্মসূচি চলাকালে কাফনের কাপড় পরে তিন রাস্তার মোড়ে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে ‘প্রতীকী গোলচত্বর’ তৈরি করে সংগঠনটি।

এ সময় রাস্তার উভয় পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। ১০ মিনিট প্রতীকী মহাসড়ক অবরোধ শেষে পাঁচ দফা দাবি ঘোষণার মধ্য দিয়ে কর্মসূচি সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

এ সময় বক্তারা জানান, অবিলম্বে রশিদপুরে গোলচত্বর ও স্পিডব্রেকার নির্মাণ করতে হবে। ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন, সড়কবাতি স্থাপন ও ডিভাইডারের মাধ্যমে পৃথক লেন তৈরি করতে হবে। দূরপাল্লার বাসে দুজন করে চালক দিয়ে গাড়ি চালাতে হবে। অন্যথায় আগামীতে মহাসড়ক অবরোধসহ আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।

কর্মসূচিতে একাত্মতা পোষণ করে নিজ নিজ ব্যানার নিয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেয় - মানবসেবা রক্তদান সমাজকল্যাণ ফাউন্ডেশন, মানবতার ঘর, বিশ্বনাথ ইসলামি ছাত্রসংস্থা, রাজ সংগীতালয় এবং বাচাঁও হাওর।

গত শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের রশিদপুর নামক স্থানে সিলেটমুখী লন্ডন এক্সপ্রেস ও ঢাকামুখী এনা পরিবহনের বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় বাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে দুই বাসের চালক, একজন চিকিৎসকসহ আটজন নিহত হন।

সিবি/এডিবি