NAVIGATION MENU

সংগীত ব্যক্তিত্ব মোবারক হোসেন খান আর নেই


প্রখ্যাত সংগীত ব্যক্তিত্ব মোবারক হোসেন খান আর নেই। তিনি প্রখ্যাত শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী আয়েত আলী খানের ছেলে । সংগীত ব্যক্তিত্ব মোবারক হোসেন রবিবার ( ২৪ নভেম্বর ) সকালে ঘুমের ভেতর মারা যান। তার পরিবারের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যা দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন তিনি। আজ ভোরে স্ত্রী ফৌজিয়া ইয়াসমীন খেয়াল করে মোবারক হোসেন খানের শরীর নিথর হয়ে আছে, নিশ্বাস প্রশ্বাস চলছেনা । ভোরের কোনো একসময় শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার মরদেহ রাখা হয়েছে বারডেমের হিমঘরে। ছেলে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেরার পর জানাজা ও দাফনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

মোবারক হোসেন খানের স্ত্রী ফৌজিয়া ইয়াসমীন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমীনের বড় বোন। তাদের তিন সন্তানের মধ্যে কন্যা রিনাত ফৌজিয়া সংগীতশিল্পী আর দুই ছেলে তারিফ হায়াত খান ও তানিম হায়াত খান।

তিনি ১৯৮৬ সালে একুশে পদক, ১৯৯৪ সালে স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার ও ২০০২ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন।

মোবারক হোসেন খান ১৯৩৮ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শিবপুর গ্রামের সংগীত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁ প্রখ্যাত শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী। মা উমার উন-নেসা। তার চাচা ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ উপমহাদেশের প্রখ্যাত সংগীতজ্ঞ।

ছয় ভাইবোনের মধ্যে মোবারক হোসেন খান সবার ছোট। তার বড় তিন বোন আম্বিয়া, কোহিনূর ও রাজিয়া এবং বড় দুই ভাই প্রখ্যাত সংগীতজ্ঞ আবেদ হোসেন খান ও বাহাদুর হোসেন খান।

হোসেন খান কুমিল্লা জেলা স্কুলে সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তি হন এবং সেখান থেকে ১৯৫২ সালে মেট্রিক পাস করেন। পরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে বিএ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিষয়ে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন।

১৯৬২ সালের ২০শে অক্টোবর বাংলাদেশ বেতারের অনুষ্ঠান প্রযোজক হিসেবে মোবারক হোসেন খানের কর্মজীবন শুরু হয়। পরে তিনি বাংলাদেশ বেতারের পরিচালক হিসেবে ৩০ বছর কর্মরত ছিলেন।

তিনি ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।

ওআ

আজকের বাংলাদেশপোস্টের বিনোদন সংবাদ পেতে এখানে ক্লিক করুন