ন্যাভিগেশন মেনু

শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর


করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারিতে দীর্ধ এক বছর ধরে বন্ধ শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রীসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশনা দেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি মন্ত্রিসভা বৈঠক হয়। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন। সেখানেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কবে খোলা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সংশ্লিষ্টদের বৈঠকের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘এতোদিন হয়ে গেছে। ইংল্যান্ড ছাড়া ইউরোপের অন্যান্য দেশে স্কুল কলেজ খোলাই আছে ভার্চুয়ালি। সেই সব দৃষ্টিকোন থেকে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন আপনারা বসে চিন্তাভাবনা করেন- যে আপনারা খুলে দিতে পারবেন কিনা।’

তিনি আরও বলেন, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার আগে শিক্ষক-কর্মচারীদের টিকা দেয়া নিশ্চিত করতে হবে।’

এদিকে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ২৪ মে খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘আগামী ১৭ মে সব আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়া হবে এবং এই সময়ের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট সকলে টিকা দেওয়া হবে।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘২৪ মে তারিখের মধ্যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা নিতে পারবে না।’

করোনা মহামারির কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েকধাপে বাড়ানোর পর ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে ৩০শে জানুয়ারি উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ফেব্রুয়ারি মাস নজরে রাখব। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মার্চ-এপ্রিলে আংশিকভাবে স্কুল খুলে দেয়া হবে।’

ওআ/