NAVIGATION MENU

র‌্যাব অফিসে ডেকে পাঠানো হয় নোবেলকে


বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না সারে-গামা খ্যাত নোবেলকে। কিছুদিন থেকে ফেসবুকে একের পর এক পোস্ট দিয়ে সমালোচনায় মুখে পড়েছেন সারেগামাপা-২০১৯’ এর দ্বিতীয় রানার্সআপ মাঈনুল আহসান নোবেল। 

বিভিন্নজনের সঙ্গে তর্কেও জড়িয়ে পড়েন। তাহসিন এন রাকিব নামের একজন ইউটিবার ও সঙ্গীতশিল্পীর সঙ্গে ক্রমাগত বাক্যযুদ্ধে লিপ্ত হন। যেখানে অশালীন শব্দেরও প্রয়োগ ঘটে।

এসব চোখ এড়ায়নি পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের। শুধু তাই নয় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)ও পর্যবেক্ষণ করে নোবেলকে। এরপর তাকে র্যা ব ২ কার্যালয়ে ডাকা হয়। 

সেখানে জানতে চাওয়া হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এমন কর্মকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে।কারণ হিসেবে নোবেল র্যা বকে জানায়, তার আসন্ন একটি গানকে কেন্দ্র করে ‘মার্কেটিং পলিসি’ ছিল এসব।

এ বিষয়ে  র‌্যাবের এডিশনাল এসপি মনির জামান বলেন, ‘নোবেলম্যানকে নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে, আর বোধহয় দরকার নেই। উনি আমাদের দেশের একজন প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী, যিনি কিনা আমাদের প্রতিবেশী দেশেও ব্যাপক জনপ্রিয়।’

র‌্যাবের এই আধিকারীক বলেন, ‘নোবেলম্যান তার নিজস্ব ফেসবুক পেজ Noble Man এ সম্প্রতি যা বলেছেন তা ওনার আসন্ন নতুন গান “তামাশা” কে প্রমোট করার জন্য। কাউকে কষ্ট দেওয়াটা ওনার উদ্দেশ্য ছিল না। 

তারপরও যদি কেউ কষ্ট পেয়ে থাকেন তাহলে উনি আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এটিই ওনার বক্তব্য। আমরা  র‌্যাব- ২ এর পক্ষ থেকে ওনাকে ডেকেছি এবং উনি স্বেচ্ছায় আমাদের কাছে এসে ওনার উপরোক্ত বক্তব্যটি পেশ করেছেন।’ 

নোবেল নিজেও তার অভিমত ফেসবুকে জানিয়ে দিয়েছেন তার মার্কেটি পলিসির অংশ ছিল এসব। যদিও ভক্তরা মন্তব্যে তার এই পলিসিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। 

এস এস/