ন্যাভিগেশন মেনু

রাশিয়ায় পুতিনবিরোধী বিক্ষোভ, গ্রেফতার ৩ হাজার


রাশিয়ার বিরোধী নেতা কারাবন্দি অ্যালেক্সেই নাভালনির মুক্তির দাবিতে রাজধানী মস্কোসহ দেশটির বিভিন্ন শহরে রাস্তায় বিক্ষোভ করতে নামা সমর্থকদের থেকে তিন হাজারেরও বেশি মানুষকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি)  রাজধানী মস্কোসহ ৯০টির মতো স্থানে এ সমাবেশ হয়েছে। এ সময় তিন হাজারেরও বেশি নাভালনি সমর্থককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় নাভালনির স্ত্রী ইউলিয়া নাভালনিকেও গ্রেফতার করা হয়।  খবর আলজাজিরার। 

দেশটির কর্তৃপক্ষ জনগণকে এই বিক্ষোভ থেকে দূরে থাকার বিষয়ে সতর্ক করেছিল। তারা বলেন, এর ফলে করোনার সংক্রমণ ছড়াতে পারে। এছাড়াও অননুমোদিত সমাবেশে যোগ দেওয়ার কারণে মামলাসহ জেল-জরিমানাও হতে পারে। কিন্তু প্রতিবাদকারীরা এই নিষেধাজ্ঞা অস্বীকার করে তীব্র ঠান্ডার মধ্যে সমাবেশ আয়োজন করেন।

গত সপ্তাহে জার্মানি থেকে ফেরার পরই গ্রেফতার হওয়ায় সমর্থকদের বিক্ষোভের ডাক দেন নাভালনি। মস্কোতে লাখো বিক্ষোভকারী অংশ নিয়ে নাভালনির মুক্তির দাবি জানান। এ সময় পুলিশ হামলা চালায়।  বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়।

প্রতিবাদ পর্যবেক্ষণকারী গ্রুপ ওভিডি-ইনফো জানিয়েছে, সারাদেশ থেকে অন্তত তিন হাজার ৬০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে রাজধানী মস্কো থেকে একহাজার ৯৯ জন এবং সেন্ট পিটার্সবার্গে অন্তত ৩৮৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। ১১০টি শহর ও নগরীতে অনুষ্ঠিত সমাবেশ থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

নাভালনির স্ত্রী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের দেওয়া এক পোস্টে জানান, পুলিশ তাকে ভ্যানে করে নিয়ে গেছে। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বিরোধীদলের সমর্থক ও স্বাধীন সাংবাদিকদের বিক্ষোভের বিষয়ে সতর্ক করেছে দেশটির পুলিশ। একইসঙ্গে দেশটির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে অংশ না নেওয়ার জন্যও সতর্ক করা হয়। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে নিয়ম অনুযায়ী বিভিন্ন ব্যবস্থাসহ বহিস্কার পর্যন্ত করা হতে পারে।

নাভালনি মূলত রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরোধী সমালোচক হিসেবে এখন বিশ্বজুড়ে পরিচিত। দুর্নীতি বিরোধী অবস্থানে বেশ জনপ্রিয়তাও লাভ করেছেন বন্দি এই নেতা। দেশটিতে বিষ দিয়ে হত্যাচেষ্টা থেকে প্রাণে বেঁচে জার্মানিতে পাঁচ মাস থাকার পর গত রবিবার (১৭ জানুয়ারি) দেশে ফেরার সঙ্গে সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে।

ওআ/