ন্যাভিগেশন মেনু

রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক আর নেই


একুশে পদকপ্রাপ্ত ও দেশের প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৯ বছর।

রবিবার (১১ এপ্রিল) সকাল সাড়ে৬টার দিকে শ্যামলীতে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন এই গুণী শিল্পী।

মিতা হকের মৃত্যুর বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন মিতা হকের মেয়ে ফারহিন খান জয়িতা। 

তিনি জানান, গত ২৫ মার্চ মিতা হকের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। শুরুতে তিনি নিজ বাসাতেই আইসোলেশনে ছিলেন। এরপর (৩১ মার্চ) তাকে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১১দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর তিনি সুস্থও হয়ে উঠেন। ফলে ৯ এপ্রিল তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

ফের ১০ এপ্রিল (শনিবার) সকালের দিকে হঠাৎ হার্ট অ্যাটাক করেন তিনি। এরপর তাকে আবার হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থাতেই আজ (রবিবার) সকালে তিনি মারা গেছেন।

মিতা হক গত ৫ বছর ধরে কিডনি রোগে ভূগছিলেন। নিয়মিত ডায়লাইসিস নিতেন। কিন্তু এবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে মানসিক এবং শারীরিকভাবে কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়েছেন।

মিতা হক ১৯৬২ সালে ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশ বেতারের সর্বোচ্চ গ্রেডের তালিকাভুক্ত শিল্পী। তার এককভাবে মুক্তি পাওয়া মোট ২৪টি অ্যালবাম আছে। এর মধ্যে ১৪টি ভারত থেকে ও ১০টি বাংলাদেশ থেকে।

তিনি ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। সঙ্গীতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০২০ সালে একুশে পদক প্রদান করে।

মিতা হক প্রয়াত অভিনেতা খালেদ খানের স্ত্রী। মেয়ে জয়িতাও রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী।

এডিবি/