ন্যাভিগেশন মেনু

ভারতের তুষারধস: মৃত ৩১, নিখোঁজ ১৮৫

ভারতের উত্তরাখণ্ডের চামোলি জেলায় তুষারধসে এখন পর্যন্ত ৩১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিপর্যয়ের ৪৮ ঘণ্টা পরও নিখোঁজ রয়েছেন ১৮৫ জন।

মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়েছেন, পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে কেন্দ্র এবং রাজ্য। 

উত্তরাখণ্ডের বিপর্যয় মোকাবেলা বাহিনীর (এসডিআরএফ) মুখপাত্র প্রবীণ অলোক বলেন, ‘মঙ্গলবার বেলা পর্যন্ত ৩১ জনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে নদীতে পাঁচটি মরদেহ পাওয়া গেছে। মরদেহের জন্য নদী এবং নদীগর্ভে খোঁজ চালিযে যাচ্ছে এসডিআরএফ।’ 

তিনি জানান, ন্যাশনাল থার্মাল পাওয়ার কর্পোরেশনের (এনটিপিসি) প্রকল্পের একালায় ১ দশমিক ৭ কিলোমিটার দীর্ঘ সুড়ঙ্গে ৩৫ জন শ্রমিক আটকে আছেন। তাদের উদ্ধারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, ইতিমধ্যে ১৮৫ জন নিখোঁজ মানুষকে চিহ্নিত করা হয়েছে। উত্তরাখণ্ড পুলিশ তাদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে। এদের মধ্যে ১৭৩ জন বাঁধের এলাকার শ্রমিক। তাদের অধিকাংশের বাড়ি উত্তরপ্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডে।

এ ছাড়াও ১২ জন গ্রামবাসী এবং দু'জন পুলিশকর্মী নিখোঁজ।

চামোলি জেলার জোশীমঠ লাগোয়া এলাকার আড়াই হাজার গ্রামবাসীকে আকাশপথে খাবার এবং ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস। 

মঙ্গলবার রাজ্যসভায় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, উত্তরাখণ্ডের পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে কেন্দ্র এবং রাজ্যের বিভিন্ন সংস্থা। ইন্দো-টিবেটিয়ান বর্ডার পুলিশের (আইটিবিপি) ৪৫০ জওয়ান, জাতীয় বিপর্যয় মোকাবেলা বাহিনীর (এনডিআরএফ) পাঁচটি দল, ভারতীয় সেনার আটটি দল, ভারতীয় নৌবাহিনীর একটি দল এবং ভারতীয় বায়ুসেনার পাঁচটি হেলিকপ্টার উদ্ধার এবং তল্লাশি অভিযানে যুক্ত আছে।

এডিবি/