ন্যাভিগেশন মেনু

ব্যাংক কর্মকর্তাদের যাতায়াত-সুবিধা নিশ্চিতের নির্দেশ


সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যে জরুরী সেবার আওতায় ব্যাংক খোলা রাখায় এই সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যাতায়াতের জন্য পরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিতের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। যদি কোনও ব্যাংক তা নিশ্চিত করতে না পারে তাহলে কর্মীদের যাতায়াত ভাতা দিতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে। এ নির্দেশনা ১৪ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ চলাকালে প্রযোজ্য থাকবে।

ব্যাংকসমূহের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, 'করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধকল্পে সরকার কর্তৃক আরোপিত বিধিনিষেধের মধ্যে বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু রাখার সময়সীমা প্রাথমিকভাবে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল নির্ধারণ এবং পরবর্তীতে ২১ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। এ অবস্থায় ব্যাংকের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের স্ব স্ব অফিসে আনা-নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। তবে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ চলাকালে ব্যাংক সবক্ষেত্রে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হয়েছে। গণপরিবহনের অপ্রতুলতার কারণে ব্যাংক কর্মকর্তা/কর্মচারীরারা অধিক ব্যয় ও ভোগান্তির সম্মুখীন হচ্ছেন।’

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, ‘কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যাতায়াত সমস্যা নিরসনে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনায় নিজস্ব পরিবহন সুবিধা নিশ্চিত করবে। কোনো কারণে যাতায়াত সুবিধা নিশ্চিত করতে অসমর্থ/ব্যর্থ হলে ব্যাংকে আসা-যাওয়ার জন্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরকে সরকারি বিধিনিষেধ চলাকালে যাতায়াত ভাড়ার প্রকৃত ব্যয় অধিক বিধায় বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ব্যাংক ব্যবস্থাপনা কর্তৃক যৌক্তিক হারে যাতায়াত ভাতা প্রদান/পুনর্ভরণের ব্যবস্থা করবে। এতদ্সংক্রান্ত ব্যয়ের বিষয়ে পরবর্তীতে স্ব স্ব ব্যাংকের পরিচালক পর্ষদের কার্যোত্তর অনুমোদন গ্রহণ করবে।’

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হলো বলে নির্দেশনায় বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

চলমান বিধিনিষেধের মধ্যে বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু রাখার সময়সীমা প্রাথমিকভাবে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল এবং পরবর্তী সময়ে ২১ থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়। এ সময় ব্যাংক লেনদেনে চলবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত। আর আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ করার জন্য ব্যাংক খোলা থাকবে আড়াইটা পর্যন্ত।

ওআ/