NAVIGATION MENU

বেনাপোল পৌরসভার ৫৪ কোটি টাকার বাজেট ঘোষনা


স্বাস্থ্য খাতকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বেনাপোল পৌরসভার ২০২০-২০২১ অর্থবছরের জন্য ৫৪ কোটি ৪০ লাখ ৫৬ হাজার ৩৬ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার বিকেলে পৌরভবন মিলনায়তনে পৌর এলাকার সকল শ্রেণিপেশার প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বেনাপোল পৌরসভার মেয়র যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম লিটন এ বাজেট ঘোষণা করেন। 

বাজেটে রাজস্ব খাত থেকে আয় ধরা হয়েছে ৬ কোটি ৩৬ লাখ টাকা, বাকি ৪৮ কোটি ৪ লাখ টাকা সরকারী খাত খেকে আসবে।

২০১১ সালে প্রথম মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে মাত্র ৩ কোটি টাকা বাজেট থেকে তিনি এই পৌরসভার উন্নয়নে এখন ৫৪ কোটিতে উন্নীত করেছেন। 

বাজেট ঘোষণাকালে তিনি চলতি অর্থবছরেই পৌরসভার তালশারিতে অবস্থিত ১০ শয্যার মা ও শিশু হাসপাতালটিকে পূর্ণাঙ্গ ২০ শয্যাবিশিষ্ট একটি হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে বলে জানান। উপস্থিত সুধীজনেরা মেয়রের এ ঘোষণাকে স্বাগত জানান। 

বাজেট পেশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বেনাপোল কাস্টমস হাউজের বিদায়ী কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরী। 

বিশেষ অতিথি ছিলেন কাস্টমস যুগ্মকমিশনার শহিদুল ইসলাম, উপকমিশনার পারভেজ রেজা চৌধুরী, বেনাপোল স্থলবন্দরের সহকারী পরিচালক আতিকুল ইসলাম, প্রবীণ শিক্ষাবিদ আহসান উল্লাহ মাস্টার, বিশিষ্ট নারী উদ্যোক্তা সাহিদা রহমান সেতু।

বাজেট বক্তৃতায় পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেন, সারাবিশ^ শতাব্দির এক ভয়ঙ্কর মহামারির সঙ্গে লড়ছে। বাংলাদেশও লড়ছে, আমরা বেনাপোলবাসীরাও লড়ছি। 

এই করোনা মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সারা পৃথিবীর মতো বাংলাদেশও স্বাস্থ্য খাতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে। এবার বেনাপোল পৌরসভার বাজেটের স্বাস্থ্য খাতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। 

মোট বাজেট বরাদ্দের ১৬ কোটি টাকাই রাখা হয়েছে স্বাস্থ্য খাতের জন্য। এই টাকা দিয়ে এই অর্থবছরেই তালশারিতে অবস্থিত ১০ শয্যার মা ও শিশু হাসপাতালটিকে একটি পূর্ণাঙ্গ ২০ শয্যাবিশিষ্ট একটি হাসপাতাল নির্মাণ সু-সম্পন্ন করা হবে। 

এরফলে বেনাপোলের অধিবাসীদের আর দূরান্তের হাসপাতালের দিকে ছুটতে হবে না। এই মা ও শিশু হাসপাতালেই করোনা রোগের উপসর্গ পরীক্ষাকরণের প্রকল্পটি দ্রুত চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। 

মেয়র লিটন আরও বলেন, বিদায়ী কাস্টমস কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরীকে এই বেনাপোল পৌর নাগরিক এলাকায় বসবাসের জন্য একখন্ড জমি উপহার দেওয়ার ঘোষণা দেন। 

এছাড়া পৌর এলাকার সিএন্ডএফ,  ট্রান্সপোর্ট মালিকসহ অন্যান্য ব্যবসায়ীদের ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণ বাধ্যতামূলক করার কঠোরতার গুরুত্বারোপ করেন। 

বাজেটসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাস্টমস কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরীবলেন, আমি দীর্ঘ দুই বছর ৭ মাস এই কর্মস্থলে থেকে আমার রাজস্ব আদায়ে দেশের একজন নাগরিক হিসেবে যে দায়িত্ব পালন করেছি তার অন্যতম একটি হলো বেনাপোলে রেল আইসিডি টার্মিনাল নির্মাণে সিদ্ধান্ত চূড়ান্তকরণ। 

১০ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ভারত-বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে বেনাপোলে এই রেল আইসিডি নির্মাণের কাজ চলতি অর্থবছরেই শুরু হয়ে যাবে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, মেয়র আাশরাফুল আলম লিটন একজন স্বচ্ছ-সুন্দর মন ও মানসিকতার নান্দনিক লোক। তার সহযোগিতায় বেনাপোলের দিঘিরপাড় থেকে শুরু হয়ে ভারত সীমানার চেকপোস্ট পর্যন্ত দীর্ঘ আড়াই কিলোমিটার দূরত্বের বাইপাস সড়কটি দিয়ে ৭০ ভাগ পণ্যবাহী যানবাহন যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

যার ফলে বেনাপোলের নাগরিক এলাকার সড়কগুলোতে আগের মতো দুঃসহ যানজট সৃষ্টি হয়না।

এস এস