ন্যাভিগেশন মেনু

বাঁশখালীতে নিহতদের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা করে দেয়ার নির্দেশ

চট্টগ্রামের বাঁশখালিতে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত শ্রমিকদের প্রত্যেকের পরিবারকে আপাতত ৫ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি কেন গঠন করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

পাশাপাশি ওই ঘটনায় পুলিশ ও জেলা প্রশাসকের তদন্ত প্রতিবেদন, আহতদের চিকিৎসার সর্বশেষ তথ্য দেয়াসহ শ্রমিকদের নিরাপত্তা বিধানের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার (৪ মে) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এর আগে এ ঘটনায় প্রথমে মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) একটি রিট করে। সেই সঙ্গে পাঁচটি মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষ থেকে পুলিশের গুলিতে ছয় শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্ত, ক্ষতিপূরণের নির্দেশনাসহ বিভিন্ন দাবিতে আরেকটি রিট করা হয়। গত রবিবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট ভার্চুয়াল বেঞ্চ এই রিট দুটি শুনানির জন্য মঙ্গলবার দিন ঠিক করে আদেশ দেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ সেটি শুনানির জন্য কার্যতালিকায় আসে।

গত ২২ এপ্রিল এ ঘটনায় নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে ৩ কোটি ও আহত পরিবারকে ২ কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) রিট করে।

এরপর ২৭ এপ্রিল বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি (বেলা), বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), নিজেরা করি, সেফটি অ্যান্ড রাইটস ও অ্যাসোসিয়েশন ফর ল্যান্ড রিফর্ম অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (এএলআরডি) রিট আবেদন করেছিল।

এর আগে গত ২২ এপ্রিল একটি মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র ক্ষতিপূরণ চেয়ে ও পরবর্তিতে আরও ৫টি সংগঠন চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে রিট করে।

গত ১৭ এপ্রিল চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৫ শ্রমিক নিহত ও অন্তত ২০ জন আহত হন। বেতনভাতা ও কর্মঘণ্টা কমানো নিয়ে অসন্তোষের জেরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

আইনজীবীরা জানিয়েছেন, বাঁশখালিতে পুলিশের গুলিতে নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে আপাতত পাঁচ লাখ টাকা করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ওই ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

তারা জানান, ওই ঘটনায় গঠিত দুটি তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ৪৫ দিনের মধ্যে দাখিল করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া আহতদের চিকিৎসার বিষয়েও একই সময়ের মধ্যে জানাতে বলেছেন আদালত।

ওআ/