ন্যাভিগেশন মেনু

ফ্রান্সে ১৮ বছরের নিচে মেয়েদের হিজাব পরায় নিষেধাজ্ঞা


ফ্রান্সে ১৮ বছরের কম বয়সী মুসলিম কিশোরীদের প্রকাশ্যে হিজাব পরা নিষিদ্ধের প্রস্তাব সিনেটে পাশ হয়েছে। তবে বিতর্কিত এই বিল পাশের পর তা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এর বিরোধিতা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘#হ্যান্ডসঅফমাইহিজাব’ (#HandsOffMyHijab) লিখে প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন অনেকে। 

সম্প্রতি ফরাসি সরকার যে তথাকথিত ‘বিচ্ছিন্নতাবাদ বিরোধী’ আইন আনতে চাচ্ছে তারই অংশ হিসেবে এমন পদক্ষেপ নিলো সিনেট।

ফরাসি সরকার বলছে, বিচ্ছিন্নতাবাদ বিরোধী এই আইনের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের সেক্যুলার ব্যবস্থাকে গতিশীল করা। কিন্তু সমালোচকরা বলছে, মূলত দেশটির মুসলিম সংখ্যালঘুদের টার্গেট করতেই এমন আইন আনছে ফ্রান্সের সরকার।

এই বিলের বিরোধিতা করেছেন অনেকে। প্রস্তাবিত এই আইনকে ‘ইসলামবিরোধী আইন’ বলে আখ্যায়িত করেছেন অনকে। এর মাধ্যমে মুসলিম সংখ্যালঘুদের একপেশে করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন তারা।

টুইটারে মানার নামে একজন লিখেছেন, ‘ফ্রান্সে ১৫ বছর বয়সীদের যৌনতায় সম্মতি আছে। আর ১৮ বছরের কম বয়সীদের হিজাব পরার অনুমতি নেই। এটি হিজাববিরোধী কোনো আইন নয়। এটি ইসলামবিরোধী আইন। #হ্যান্ডসঅফমাইহিজাব, #ফ্যান্সহিজাবব্যান।’

গত ৩০ মার্চ প্রস্তাবিত এই বিলের একটি সংশোধনী অনুমোদন দেয় সিনেট। যেখানে বলা হয়, ১৮ বছরের কম বয়সীরা জনসম্মুখে ধর্মীয় কোনও চিহ্ন এবং এমন কোনও পোশাক পরতে পারবে না যার মাধ্যমে তাদের অবস্থান পুরুষের চেয়ে খাটো হয়ে যায়।

এই বিলটি এখনও আইনে পরিণত হয়নি। এটি আইনে কার্যকর হওয়ার আগে প্রয়োজনীয় পরিবর্তন এনে তা ফ্রান্সের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে পাস হবে। কিন্তু এমন সংশোধনীর কড়া সমালোচনা শুরু হয়েছে। অনেকেই বলছেন, প্রস্তাবিত আইনটি ‘ইসলামের বিরোধিতা’ করার শামিল।

ওআ/