ন্যাভিগেশন মেনু

নানা আয়োজনে শোক দিবস পালন করলো ওজোপাডিকো

ডিজিটাল বাংলাদেশ ও শতভাগ বিদ্যুতায়নের প্রত্যয়


ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মো: শফিক উদ্দিন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে হারাবার শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে তার অসামাপ্ত কাজকে বাস্তবে রূপদান করতে হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে ওজোপাডিকো’র প্রতিটি কর্মীকে শতভাগ বিদ্যুতায়ন নিশ্চিত করে গ্রাহক সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে।

শনিবার (১৫ আগস্ট) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৫তম শাহদত বার্ষিকী উপলক্ষে ওজোপাডিকো’র সদর দপ্তরের সাথে ৬৩টি দপ্তরকে সংযুক্ত করে এক ভার্চুয়াল সভায় তিনি এসব কথা বলেন। 

দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শফিক উদ্দিন বলেন জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার পর বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা থামিয়ে দেয়ার অপচেষ্টা চেষ্টা শুরু হয়। তাঁকে ইতিহাস থেকে দূরে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু সব অপচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।  

বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের মাঝে যাদের রায় এখনো কার্যকর করা হয়নি তাদেরকে দেশে ফিরিয়ে এনে রায় দ্রুত কার্যকর করার আহবান জানান তিনি।   

শফিক উদ্দিন বলেন, ‘এখনও কোন নির্জন দুপুরে কিংবা গভীর রাতে একাকী অবস্থানকালে শুনতে পাই সেই বজ্রদীপ্ত কন্ঠস্বর মনে রাখবা রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরও দেবো তবুও এদেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম। এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম।’

“বঙ্গবন্ধুকে বাঙ্গলিরা ১৯৪৭ সাল থেকে অনুভব করেছিল। যদিও তিনি ছিলেন তখন তরুন শেখ মুজিব। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে তাঁকে আমরা আরও কাছে পেয়েছি। ১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধু তাঁর ৬ দফা ঘোষণা করলেন। ৬ দফার সমর্থনে সারা দেশে শুরু হলো এক অভূতপূর্ব জাগরণ। প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে পাকিস্থানী দোসররা বঙ্গবন্ধুকে 

কারাগারে পাঠায়। ১৯৬৯ এর গণজাগরণ তাঁকে সামরিক কারাগার থেকে মুক্ত করার মাধ্যমে তাঁর নেতৃত্বে আমরা পেয়েছি স্বাধীন বাংলাদেশ ও স্বতন্ত্র মানচিত্র। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত প্রতিদিন বাঙ্গালির এগিয়ে যাওয়ার সংগ্রামে উদ্দীপনা যুগিয়েছেন বঙ্গবন্ধু,” যোগ করেন তিনি। 

বঙ্গবন্ধু ও তাঁর শহীদ পরিবারকে স্বরণ করে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে আলোচনা সভা শুরু হয়। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওজোপাডিকো’র নির্বাহী পরিচালক (অর্থ) রতন কুমার দেবনাথ, কোম্পানি সচিব আবদুল মোতালেব, উপ-মহাব্যবস্থাপক (এইচআর এন্ড এডমিন) মোঃ আলমগীর কবীর প্রমুখ।

ওজোপাডিকো’র প্রধান প্রকৌশলী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মোহাম্মদ নাজমুল হুদা।

দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপি নানা কর্মসূচী পালন করে ওজোপাডিকো। এর অংশ হিসেবে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ওজোপাডিকো’র সকল দপ্তরে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত, সকাল ৮ টায় বাংলাদেশ বেতার, খুলনায় অবস্থিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তাবক অর্পণ, ফজরবাদ ওজোপাডিকোতে অবস্থিত মসজিদসমূহে ১শ কুরআন খতম এবং জোহরবাদ সকল মসজিদে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সেখানে জাতির পিতাসহ তাঁর পরিবারের শাহাদাত বরণকারীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত শেষে এতিম, দুস্থ ও ছিন্নমূল মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়। 

ওআ/