ন্যাভিগেশন মেনু

থাপ্পড় খেয়েও ম্যাক্রোঁ বললেন ক্ষোভ প্রকাশে সবার স্বাধীনতা আছে


সম্প্রতি বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা হলো ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে থাপ্পড়ের ঘটনাটি। ওই ঘটনা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা এখনও ঝড় বয়ে চলছে। ক্ষুব্ধ হয়েছেন ম্যাক্রোঁও।

তিনি অনেকটা এভাবেই বলেছেন, ক্ষোভ প্রকাশের স্বাধীনতা সবার আছে। কিন্তু বোকার মতো গায়ে হাত তুলবে কেন? আমি সাধারণ নাগরিকদের কাছে যাই। অনেক সময়ই তারা ক্ষোভ-হতাশা প্রকাশ করে থাকেন।

তবে চলমান জনসংযোগ কর্মসূচিতে এ ঘটনা কোনো প্রভাব ফেলবে না বলেও দাবি করেন ম্যাক্রোঁ।

মঙ্গলবার ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতেও সব দলের আইনপ্রণেতারা ওই ঘটনায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী জ্যঁ ক্যাসেক্স বলেন, দেশের প্রধানের ওপর হামলার অর্থ হল গণতন্ত্রের ওপর আঘাত। গণতন্ত্রের অর্থ হল বিক্ষোভ, বিতর্ক, আর আলোচনার মাধ্যমে মতামত আদান-প্রদান।

মতভেদ থাকতে পারে। সেটা জানানোর বৈধ উপায়ও আছে। কোনোভাবেই মৌখিকভাবে হেনস্তা বা শারীরিক আঘাত গ্রহণযোগ্য নয়।

সম্প্রতি জনসংযোগে গেলে এক নাগরিক তাকে থাপ্পড় দেন। পুলিশ ওই নাগরিকসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

উল্লেখ্য, দেশটির ড্রোম প্রদেশের ছোট শহরটির রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ী ও স্কুল পরিদর্শনের পর অপেক্ষমান সাধারণ মানুষের সাথে কুশল বিনিময়ে এগিয়ে যান ফরাসি প্রেসিডেন্ট। হঠাৎ ঘটে যায় অপ্রীতিকর ওই ঘটনা।

দেহরক্ষীরা দ্রুত সামলে নিলেও এ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ভাইরাল হয়েছে অনলাইনে।

ঘটনার পর থেকে এখনও আটককৃত হামলাকারীর পরিচয় প্রকাশ করেনি ফরাসি পুলিশ। এমনকি জানা যায়নি প্রেসিডেন্টকে চড় মারার কারণও।

সিবি / এস এস