ন্যাভিগেশন মেনু

চিকিৎসকদের অবহেলায় মারা গেছেন ম্যারাডোনা: তদন্ত প্রতিবেদন

গত বছরের ২৫ নভেম্বর বিশ্ব ফুটবলের মহানায়ক দিয়াগো ম্যারাডোনো নিজ বাড়িতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। নভেম্বরের প্রথম দিকে মস্তিষ্কে রক্তজমাট বাঁধার কারণে অস্ত্রোপচার হয় ম্যারাডোনার। এই অস্ত্রোপচারের ৮ দিন পর গত ১১ নভেম্বর হাসপাতাল ছাড়েন তিনি। এরপর নিয়মিত স্থানীয় ক্লিনিকে থেরাপি এবং সঙ্গে বাসায় চলছিল তার চিকিৎসা। কিন্তু হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরার দুই সপ্তাহের মধ্যে আকস্মিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বিশ্ব ফুটবলের সর্বশ্রেষ্ঠ এই তারকা।

এদিকে তার মৃত্যুর ছয়মাস পার না হতেই চাঞ্চল্যকর তথ্য জানালো য়েন্স আয়ারসের মেডিকেল বিভাগ। জানা গেছে, বাড়িতে যথাযথ চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু হয়েছে তার।

শনিবার (১ মে) স্কাই নিউজের এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে ।

মেডিকেল বিভাগটির সূত্রে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, ম্যারাডোনার মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর বাড়িতে প্রয়োজনীয় চিকিৎসোর অনেক ঘাটতি ছিলো। ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের অবহেলার জন্যই মারা গেছেন ম্যারাডোনা।

ম্যারাডোনার মৃত্যুর পরই তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের অবহেলার বিষয়টি আলোচনায় উঠে এসেছিল। তখন অভিযোগটির সত্যতা যাচাইয়ের জন্য আর্জেন্টিনায় তদন্ত কমিটি গঠন করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সেই সময় অস্ত্রোপচার করা নিউরোসার্জন লিওপোলদো লুকুয়ে ও মনস্তত্ত্ববিদ অগাস্তিনা কোসাশোভসহ দুই ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও নার্সকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়।

গত বছরের নভেম্বরের প্রথম দিকে মস্তিষ্কে রক্তজমাট বাঁধার জন্য অস্ত্রোপচার করা হয় ম্যারাডোনার। এর ৮ দিন পর ১১ নভেম্বর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেন। এসময় স্থানীয় ক্লিনিকে নিয়মিত থেরাপি এবং বাসায় চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরার মাত্র দুই সপ্তাহের মধ্যে আকস্মিক হৃদরোগে চিরতরে না ফেরার দেশে চলে যান ফুটবলের এই মহাতারকা।

ওআ/