ন্যাভিগেশন মেনু

খুলনায় ঘুমন্ত শিশুকে কুপিয়ে খুন, আটক সৎমা


খুলনায় পাঁচ বছর বয়সী তানিশা আক্তার নামের এক ঘুমন্ত শিশুকে দা দিয়ে কুপিয়ে খুনের ঘটনায় সৎমা মুক্তা খাতুনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (৫ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে তেরখাদা উপজেলার আড়কান্দী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

শিশু তানিশা আক্তারের বাবা খাজা শেখ আনসার ব্যাটালিয়ন পুলিশে কর্মরত। নিহত তানিশা মায়ের কাছে থাকতো। মাঝেমাঝে বাবার কাছে বেড়াতে আসতো।

জানা গেছে, খাজা শেখ সাত বছর আগে একই উপজেলার আক্কাস শেখের মেয়ে তাসলিমাকে বিয়ে করেন। পরে দাম্পত্য কলহের জেরে বিয়েবিচ্ছেদ ঘটে তাদের। বছর দেড়েক আগে মুক্তা খাতুনকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন খাজা শেখ। দ্বিতীয় স্ত্রী মুক্তা খাতুন কোনোভাবেই শিশু তানিশা আক্তারকে মেনে নিতে পারছিলেন না। এ ঘটনার জেরেই এ হত্যাকাণ্ড।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সোমবার তানিশা বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে দাদির কাছে ঘুমায়। সেখান থেকে সৎমা মুক্তা তাকে উঠিয়ে নিজের কাছে নিয়ে রাতে ঘুমন্ত তানিশাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপান। এ সময় তানিশার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে সৎমা মুক্তাকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশ।

এ সময় জব্দ করা হয় হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো দা। শিশুটিকে উদ্ধার করে তেরখাদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তানিশাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তেরখাদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় সৎমাকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওয়াই এ/এডিবি/