ন্যাভিগেশন মেনু

করোনার উৎসের তথ্য প্রকাশে চিনকে বাধ্য করা যাবেনা: হু

বৈশ্বিক কোভিড-১৯-এর বয়স দেখতে দেখতে প্রায় দেড় বছর হয়ে গেল।  গোটা বিশ্বের হাল হকিকতই পালটে দিয়েছে কোভিড-১৯ ভাইরাস। ইতিমধ্যেই ৩৭ লাখের বেশি মানুষের প্রাণ গিয়েছে এর কবলে পড়ে।

এহেন পরিস্থিতিতে করোনার উৎস সন্ধানে তুঙ্গে পৌঁছেছে আমেরিকা ও চিনের তরজা। এবার এই নিয়ে মুখ খুলল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু। সংস্থার এক শীর্ষ কর্তার মতে, চিনকে করোনার  উৎস সম্পর্কে আরও তথ্য প্রকাশ করতে বাধ্য করতে পারে না।

ঠিক কী জানিয়েছেন তিনি? এক সাংবাদিক সম্মেলনে ওঠা প্রশ্নের জবাবে সংস্থার আপৎকালীন কার্যক্রমের ডিরেক্টর মাইক রায়ান সাফ জানিয়ে দেন, ‘হু’র ক্ষমতা নেই কাউকেই এব্যাপারে জোর করার। এবিষয়ে আমরা সমস্ত সদস্য দেশের থেকেই পূর্ণ সহযোগিতা ও সমর্থন চাই।’

করোনার উৎস নিয়ে বিতর্ক রয়েছে শুরু থেকেই। এই মারণ ভাইরাস সম্ভবত বাদুড় থেকেই মানবশরীরে ছড়িয়েছে। এমন থিওরির পাশাপাশি উওহানের গবেষণাগারে একে কৃত্রিম ভাবে তৈরি হয়েছে, এমন দাবিও উঠে এসেছে। প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তো এই ভাইরাসকে ‘চিনা ভাইরাস’ বলে দাগিয়ে দিয়ে সেই দাবিকেই জোরাল করে তুলেছিলেন।

এদিকে এই বছরের গোড়ার দিকে করোনার উৎস সন্ধানে চিনে আসে ‘হু’র এক প্রতিনিধি দল। কিন্তু তাদের অভিযোগ ছিল, এখানে এসে তদন্তে নেমে তারা সমস্ত তথ্য পায়নি। অর্থাৎ পূর্ণ সহযোগিতা করেনি বেজিং। এরপর থেকেই নতুন মাত্রা পেয়েছিল সেই তর্ক। এবার ‘হু’ কর্তার এহেন মন্তব্য থেকে পরিষ্কার হয়ে গেল, চিন যদি আরও তথ্য না দেয়, সেক্ষেত্রে তাদের পক্ষে জোর করা সম্ভব নয়।

সম্প্রতি এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে চিনের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মার্কিন বিদেশ সচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। বিশ্বজুড়ে ত্রাস সৃষ্টি করা এই মহামারীর জন্য চিনকে দায় নিতে হবে। এবং এর জন্য আমেরিকাকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এস এস