ন্যাভিগেশন মেনু

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু

অবশেষে আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্যদিয়ে দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

শনিবার (১ মে) থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করেছে মার্কিন সেনারা। বিদেশি সেনা প্রত্যাহারে দেশটির নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিলেও আফগান সরকার বলছে, জনগণের নিরাপত্তা দেওয়ার সামর্থ্য রয়েছে তাদের।

বাইডেন প্রশাসনের পূর্বঘোষণা অনুযায়ি, চলতি বছরের গ্রীষ্মকালের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের ৩ হাজার ৫০০ এবং পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর ৭ হাজার সেনা সদস্যের আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবানের সঙ্গে আপস করে অবশেষে নিজেদের গুটিয়ে নিল ওয়াশিংটন।

চুক্তি অনুযায়ি, প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কাজ শুরু করলো যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সেনা প্রত্যাহারে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন সাধারণ আফগানরা। এর মধ্যদিয়ে দীর্ঘদিনের সংঘাত-সহিংতার অবসান হতে চলেছে বলে মনে করছেন তারা।

সাধারণ নাগরিকরা বলছেন, আমাদের সেনারা দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় পুরোপুরি সক্ষম। সুতরাং মার্কিন সেনারা চলে গেলেও আমাদের কোনো ভয় নেই। তারা চলে গেলে দেশের নিরাপত্তায় কোনো প্রভাব পড়বে না। বিদেশি সেনাদের হামলার পরই আফগানিস্তানে সংঘাত শুরু হয়েছিল। প্রতিদিনই আমরা দেখেছি কোথাও না কোথাও আত্মঘাতী হামলা আর বিস্ফোরণ হয়েছে।

বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের কারণে দেশটির নিরাপত্তা নিয়ে কোনো কোনো মহলের পক্ষ থেকে উদ্বেগ প্রকাশ করা হলেও তা মানতে নারাজ আফগান সরকার। তারা বলছেন, সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সম্পূর্ণ সক্ষমতা রয়েছে আফগান সেনাদের।

সিবি/এডিবি/