ন্যাভিগেশন মেনু

অন্যের স্ত্রীকে নিয়ে প্রমোদভ্রমণে গিয়েছিলেন হেফাজতের মামুনুল (অডিও)


নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়্যাল রিসোর্টে অবরুদ্ধ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক বর্তমানে মুক্ত। শনিবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রয়াল রিসোর্টের ৫ম তালার ৫০১ নম্বর কক্ষে এক নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ সময় কাটানোর সময় স্থানীয় জনতার হাতে অবরুদ্ধ অবস্থায় ছিলেন তিনি। এ সময় ওই নারীকে নিজের দ্বিতীয় স্ত্রী পরিচয় দিলেও আসলে তা ছিলো মিথ্যা!

এরইমধ্যে একটি মোবাইল ফোনে ৫৮ সেকেন্ডে কথোপকথনের একটি অডিও ক্লিপ ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এতে একটি নারী কন্ঠ এবং পুরুষ কন্ঠটি ছিল হুবহু মানুনুলের মতো। নেটিজনের এটা মামুনুলের কন্ঠ বলেই সনাক্ত করেছেন।

শনিবার দুপুরের পর মামুনুলকে নারায়ণগঞ্জের রিসোর্টটিতে স্থানীয়রা অবরুদ্ধ করার পর তিনি ও সেই নারী যে বক্তব্য দিয়েছেন, মোবাইল ফোনের কথোপকথনের বক্তব্য পুরোপুরি বিপরীত।

মামুনুল স্থানীয়দের প্রশ্নের মুখে দাবি করেন, সেই নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী, দুই বছর আগে তারা বিয়ে করেছেন। পরে সেই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করার আরও একটি ভিডিও ভাইরাল হয়, সেখানে সেই নারীও দাবি করেছেন তিনি মামুনুলের দ্বিতীয় স্ত্রী।

তবে ওই নারীর নাম কী ? এই প্রশ্নে দুইজন দুই ধরনের কথা বলেন। মামুনুল দাবি করেন, সেই নারীর নাম আমিনা তাইয়্যেবা। তবে সেই নারী নিজের নাম বলেন জান্নাত আরা (বাকিটা অস্পষ্ট)।

আবার মামুনুল দাবি করেছেন, তার শ্বশুরবাড়ি খুলনায়। শ্বশুরের নাম জাহিদুল ইসলাম। তবে সেই নারী দাবি করেছেন, তার বাবার নাম অলিয়র রহমান, বাড়ি ফদিরপুরের আলফাডাঙ্গায়। অবশ্য আগের মুহূর্তে তিনি বাড়ি একই জেলার ভাঙ্গা উপজেলা বলেও জানিয়েছেন।

এরমধ্যেই অন্য একটি নারী কণ্ঠের সঙ্গে মামুনুলের কণ্ঠের অডিও রেকর্ডটি ভাইরাল হয়, তা শুনলে এটা স্পষ্ট যে, সোনারগাঁওয়ের ঘটনাবলীর ব্যাখ্যা দিচ্ছেন পুরুষ কণ্ঠটি।


কথোপকথনটা এমন:

> আসসালামু আলাইকুম (মানুমুলের কণ্ঠস্বর)

> ওয়ালাইকুম আস সালাম ওয়া রহমাতুল্লাহ। (নারী কণ্ঠ)

> পুরা বিষয়টা আমি তোমাকে সামনে আইসা বলব।…এই মহিলা যে ছিল সাথে সে আমাদের শহিদুল ইসলাম ভাইয়ের ওয়াইফ। বুঝছ? (মানুমুলের কণ্ঠস্বর)

> ‘তুমি একটা ওখানে অবস্থা এমন তৈরি হয়ে গেছে ওখানে ওই কথা বলা ছাড়া ওখানে ওরা ই করে ফেলছিল আমাকে, বুঝছ?’ (মানুমুলের কণ্ঠস্বর)

>  আচ্ছা, বাসায় আসেন তারপরে কথা যা বলার হবে। (নারী কণ্ঠস্বর)

‘বলুম তো, তুমি বিষয়টা অন্যান্য কথা অন্যদেরকে বলতে হইব। পরিস্থিতিডা এ রকম হয়া গেছে। এই জন্য তুমি আবার মাঝখান দিয়া অন্য কিছু মনে কইর না। (মানুমুলের কণ্ঠস্বর)

> তোমাকে কেউ জিজ্ঞাস করলে তুমি বইল যে, আমি সব সব জানি। এই রকম কিছু একটা বইল। (মানুমুলের কণ্ঠস্বর)

> ঠিক আছে। (নারী কণ্ঠস্বর)

> আচ্ছা। (মানুমুলের কণ্ঠস্বর)

স্ত্রীকে নিয়ে মামুনুল হক থাকেন মোহাম্মদপুরের কাদেরাবাদ হাউজিং এর এক নম্বর সড়কে একটি বাসায়। তার চার ছেলে রয়েছে।

এডিবি/